৪ বা ৫ জন নয়, এবার বিপিএলে কত জন বিদেশী খেলবেন তা চূড়ান্ত ভাবে জানালো বিসিবি

সোমবার, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯ ৪:১৪ অপরাহ্ণ

নানা নাটকীয়তার পর অবশেষে ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএলের চুড়ান্ত সময়সূচি ঘোষণা করলো বিসিবি। নির্ধারিত সময়েই আগামী ৬ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে টুর্নামেন্ট। এর আগে ৩ ডিসেম্বর হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। আজ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে বিসিবি।

এবারের আসরে অংশগ্রহণ করবে ৭ টি দল। দেশের তিনটি ভেন্যু ঢাকা, চট্রগ্রাম ও সিলেটে মোট ৪৬ টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ৬ ডিসেম্বর মিরপুরে চট্টগ্রাম ও সিলেটের ম্যাচ দিয়ে আসর মাঠে গড়াবে। ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে ফাইনাল ম্যাচ।

এবারে আসরে যেকোন ফ্র্যাঞ্চাইজি চাইলে ২২ জন পর্যন্ত খেলোয়াড় রাখতে পারবে। যেখানে থাকবে ৯ জন বিদেশি ও ১৩ জন লোকাল প্লেয়ার। এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ৩ জন বিদেশী প্লেয়ার খেলতে পারবেন। প্লে-অফের ম্যাচ সহ ফাইনাল ম্যাচের জন্য থাকছে রিজার্ভ ডে। অংশগ্রহণকারী দল গুলো হলো:-চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, ঢাকা, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর ও সিলেট।

আরো পড়ুনঃ সাকিবকে নিয়ে বড় আফসোস করলেন হোল্ডার, তিনি বললেন……

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে গতকাল নাটকীয় ভাবে ১ রানে হেরে গিয়েছিল সাকিব আল হাসানের দল বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস।‌ কিন্তু আজ বাঁচা-মরার ম্যাচে ২৫ রানে জয়লাভ করে প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে সাকিবের দল বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস।

ম্যাচ জয়ে সাকিবের অবদান রয়েছে অনেক। প্রথম ওভারেই উইকেট হারানো বার্বাডোস ট্রাইডেন্টসকে টেনে তোলেন সাকিব আল হাসান এবং জনসন চার্লস। এই দুইজন যোগ করেন ৬২ রান। যেখানে সাকিব আল হাসান করেন ২১ বলে ২২ রান। এছাড়াও শুরুতেই বল হাতে সেন্ট লুসিয়া জুকসকে চেপে ধরেন সাকিব।

৪ ওভার বোলিং করে ২০ রানে সাকিব নেন মূল্যবান একটি উইকেট। যে উইকেটটি ছিল ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট। দারুণ খেলতে থাকা কলিন ইনগ্রামকে ২৫ রানে আউট করেন সাকিব। তাইতো ম্যাচ শেষে আলাদাভাবে সাকিব আল হাসানের প্রশংসা করলেন দলের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার।

বিশেষ করে ম্যাচ জুয়ের অবদান বোলারদেরকে দিলেন অধিনায়ক। ম্যাচ পরবর্তী পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে জেসন হোল্ডার বলেন, “আমাদের বোলাররা শুরু থেকেই দারুণ বোলিং করেছেন। ম্যাচ জয়ে অবশ্যই বোলারদের কৃতিত্ব দিতে হবে। আমাদের বিশ্বাস ছিল ১৪০ রানের মধ্যে বিপক্ষ দলকে আমরা আটকাতে পারব। আর সেটি সম্ভব হয়েছে বোলার জন্যই। সাকিব, হ্যাডেন ওয়ালশ, হ্যারি গুর্নে‌ চমৎকার বোলিং করেছে। আমরা প্লে-অফে এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চাই”।

শুরুতেই অ্যালেক্স হেলস উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বার্বাডোস। সেই চাপ সামাল দেন সাকিব আল হাসান এবং জনসন চার্লস। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে জেসন হোল্ডার আরো বলেন, আমরা শুরুতেই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে ছিলাম। সেখান থেকে দলকে দারুণভাবে ঘুরিয়ে নিয়ে গিয়েছেন সাকিব এবং জনসন চার্লস। তারা দারুণ ব্যাটিং করেছেন।

তিনি আফসোস করে আরও বলেন, ১ম থেকে আমরা তাকে(সাকিব) পাইনি। এখন তাকে পেয়ে আমি অনেক খুশি। সে সন্দীপের জায়গাটা খুব ভালভাবে পূরণ করেছে। এছাড়াও শেষের দিকে জাস্টিন গ্রাভসের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করেছেন জেসন হোল্ডার।