লন্ডন থেকে টেলি-কনফারেন্সে দেশবাসীর উদ্দেশে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী

মঙ্গলবার, জুলাই ৩০, ২০১৯ ৬:১১ অপরাহ্ণ

টেলি-কনফারেন্সের মাধ্যমে লন্ডন থেকে ঢাকায় আওয়ামী লীগের বিশেষ জরুরি সভায় যোগ দিয়ে ডেঙ্গু, বন্যা, গুজব প্রতিরোধ, পাস্তুরিত দুধসহ বিভিন্ন ইস্যুতে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) ডেঙ্গু মোকাবিলায় করণীয় ঠিক করতে আওয়ামী লীগ এই জরুরি সভার আয়োজন করে। সভা চলাকালে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের মোবাইল ফোনে কল করেন প্রধানমন্ত্রী। পরে টেলি-কনফারেন্সে মাইকের সংযোগ দেওয়া হয়।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে দেশবাসীকে সক্রিয় হওয়ার আহ্বান

ডেঙ্গু প্রতিরোধে সক্রিয় হওয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করে দেশের সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে সঙ্গে নিয়ে ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও নিরাময়ে কাজ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। একইসঙ্গে জনগণকে সচেতন করতে নেতাকর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ডেঙ্গু আস্তে আস্তে দেশের বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে। ঢাকা থেকে ঈদে যারা বাড়িতে যাচ্ছে তাদের মাধ্যমে এ রোগ অন্য এলাকায় আরও ছড়িয়ে পড়তে পারে। কারণ বাড়িতে যাওয়ার পর সেখানে ডেঙ্গু রোগী থেকে এডিস মশার মাধ্যমে ছড়াতে পারে। তাই সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। সবার প্রতি আবেদন, যার যার নিজের ঘরবাড়ি ও কর্মস্থল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখবেন। তাছাড়া কোথাও যেন বৃষ্টির পানি জমতে না পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঘরবাড়ি, অফিস, হাসপাতাল ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কোথাও যেন ফুলদানি, ফুলের টব, পরিত্যক্ত ভাঙা হাঁড়িপাতিল ও খানাখন্দে বৃষ্টির পানি জমতে না পারে সেদিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। বাসাবাড়িতে জামা-কাপড়ের মধ্যেও যেন মশা দাঁড়াতে না পারে, সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। তাছাড়া ডোবা নালায় যেন এডিস মশা বিস্তার লাভ করতে না পারে, সে ব্যাপারে ঢাকার দুই সিটি মেয়রসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে করণীয় যা যা আছে, তার প্রত্যেকটি ব্যবস্থা গ্রহণ করার আহ্বান জানাচ্ছি।’ সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের সব নেতাকর্মীকেও পরিচ্ছন্নতা কাজে নামার আহ্বান জানান দলটির সভাপতি।
আওয়ামী লীগের বিশেষ জরুরি সভা (ছবি: ফোকাস বাংলা)

গুজবে কান নয়

পদ্মা সেতুতে মানুষের মাথা লাগার গুজব ও গণপিটুনি ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশবাসীকে বলবো গুজবে কান দেবেন না। কাউকে সন্দেহ হলে পুলিশের হাতে তুলে দিন। গুজব ও গণপিটুনির নামে মানুষ হত্যা জঘন্য অপরাধ ও পাপের কাজ। মিডিয়ার যারা আছেন তাদের বলবো, অহেতুক ভুল তথ্য ছড়িয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করবেন না।’

গুজব ও ভুল তথ্য প্রচারকারী এবং গণপিটুনিতে জড়িতদের হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গুজব ছড়িয়ে মানুষ হত্যা করে আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না। গুজব ও মিথ্যা তথ্য যারা ছড়াবে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বন্যা মোকাবিলায় কাজ করছে সরকার

দেশের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ভৌগোলিক কারণে আমাদের দেশে বিভিন্ন সময় নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা যায়। বর্তমানে বেশ কয়েকটি জেলায় যে বন্যা দেখা দিয়েছে, তা মোবাবিলায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়সহ সরকারের অন্যান্য দায়িত্বশীলরা কাজ করছে। তাছাড়া আওয়ামী লীগের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বন্যাকবলিতদের সাহায্য-সহযোগিতা করতে বলা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বন্যা ও নদী ভাঙন থেকে রক্ষা পেতে ও নদীগুলোতে পানি ধরে রাখতে ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগ সরকার নদীগুলো ড্রেজিংয়ের কাজ করছে। নদীর পানি ধারণক্ষমতা বাড়াতে পারলে নদীভাঙন ও বন্যা প্রবণতা কমবে এবং শুষ্ক মৌসুমেও পানির ঘাটতি কমবে।’

দুধ ইস্যু

বাজারে পাস্তুরিত দুধের সংকটের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি জানি না হঠাৎ করে একজন প্রফেসর সাহেব কী পরীক্ষা চালালেন, আর এই পরীক্ষার ওপর ভিত্তি করে আদালতে রিট হলো। একে একে সব কোম্পানির দুধ উৎপাদন বন্ধ। এর ফলে দুধের ঘাটতিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ। আবার যারা খামার করছে তারাই বা কীভাবে জীবনযাপন করবে, আর গরুকেই বা কী খাওয়াবে। আমদানিকৃত গুঁড়ো দুধের ব্যাপারে কোনও পরীক্ষা হয় না। তাই গুঁড়ো দুধ আমদানিকারকদের কোনও কারসাজি এখানে আছে কি-না সেটিই এখন বড় প্রশ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘গবাদি পশুকে রোগমুক্ত রাখতে অনেক সময় অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়ানো হয়। সেক্ষেত্রে দুধে কিছুটা অ্যান্টিবায়োটিকের উপস্থিতি থাকতে পারে। তবে দুধের যে সংকট সৃষ্টি হয়েছে তা থেকে পরিত্রাণ পেতে সরকার কাজ করছে।’

কর্মসূচি ঘোষণা করলেন ওবায়দুল কাদের

ডেঙ্গু মোকাবিলায় ‘পরিষ্কার রাখি চারপাশের পরিবেশ, পরিচ্ছন্ন সমাজ ডেঙ্গুমুক্ত বাংলাদেশ’ শীর্ষক সভায় ওবায়দুল কাদের ঢাকার দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশনসহ দেশের জেলা, উপজেলা, থানা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে তিন দিনের পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচি ঘোষণা করেন। এরই অংশ হিসেবে বুধবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা, শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা এবং শনিবার ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত সব ওয়ার্ড পর্যায়ে পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদসহ ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের উত্তর ও দক্ষিণের নেতাকর্মীরা।সূত্র:বাংলাট্রিবিউন