মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে দ্বন্দ্ব নিয়ে এবার মুখ খুলেন সাকিব, পরিষ্কার করে যা বললেন

শুক্রবার, আগস্ট ৩০, ২০১৯ ৯:০১ পূর্বাহ্ণ

বিশ্বকাপ চলাকালীন সময়ে ‘সাকিব-মাহমুদউল্লাহর দ্বন্দ্ব ‘ ইস্যু নিয়ে বেশ গরম ছিল গণমাধ্যমগুলো। দেশের সীমানা পেরিয়ে বিদেশি গণমাধ্যমগুলোতে পর্যন্ত এ খবর প্রচারিত হয়েছিল । বিশ্বকাপের পর কয়েকদিন আগে এই ইস্যু নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বেশ ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন মাহমুদউল্লাহ । এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি উল্লেখ করে তিনি সাংবাদিকদের ড্রেসিংরুম পরিদর্শন করে যেতে বলেন। এবারে জাতীয় দৈনিক ‘প্রথম আলোকে’ দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সাকিব এ ব্যাপারে মুখ খুলেছেন । প্রথম আলো থেকে সংগৃহীত সাক্ষাৎকারটির ঐ অংশটুকু নিচে তুলে ধরা হলো :-

প্রশ্ন: এত ভালোর মধ্যে (বিশ্বকাপে দারুণ পারফরম্যান্সের পরও) কিছু বিতর্কও আছে। ইংল্যান্ডের সঙ্গে মন্থর ব্যাটিং করায় আপনি নাকি অধিনায়ক মাশরাফিকে বলেছিলেন পরের ম্যাচে মাহমুদউল্লাহকে দলে না রাখতে। এ নিয়ে কিছু বলবেন?

সাকিব: এখানে লুকোচুরির কিছু নেই। যে এই বিষয়টা বলেছে বা এই সংবাদ করেছে, তিনি কাজটা ঠিক করেননি। বিশ্বকাপের সময় সাইফউদ্দিনকে নিয়ে একটা সংবাদ ছাপা হলো। ও নাকি বড় দলের বিপক্ষে ভয়ে খেলে না। এসব খবর কি দলের জন্য ভালো? দলে যারা ছিল তারা জানে এই নিউজ কে করিয়েছে। সাইফউদ্দিন কি খেলেনি? একটা দলকে মানসিকভাবে ভেঙে দেওয়ার জন্য এসবই যথেষ্ট।

প্রশ্ন: কিন্তু কোনো সাংবাদিক যখন এ রকম তথ্য পাবেন, তিনি তো লিখবেনই…

সাকিব: আমি সাংবাদিকের দোষ দিচ্ছি না। ভেতর থেকে তথ্যটা যে গেছে, সেটা খারাপ। আপনি জানবেন কখন? যখন আমি বলব, যখন আমাদের কেউ বলবে, তখনই জানবেন। ভেতর থেকে যখন এসব খবর বাইরে যাবে, দলের ভালো করার সম্ভাবনা থাকলেও সেটা ওই সময় কমে যাবে। যেটা আমাদের ফলাফলেও প্রভাব ফেলেছে। প্রথমত, আমি ও রকম কিছু বলিনি। আর যদি বলেও থাকি, সেটা যে বাইরে এল, এর দায় কে নেবে? আমাদের ভেতরে আলাপ-আলোচনা হতেই পারে। সেখানে বিদেশি কোচদের বাইরে এক-দুজনই থাকে যারা দলের নীতিনির্ধারণী বিষয়ে সম্পৃক্ত। নিশ্চয়ই তাদের থেকেই এটা বের হয়েছে। সেটা কে? বিষয়টা খুবই খারাপ। তারা হয় দলের ভালো চায় না, অথবা ওই খেলোয়াড়ের ভালো চায় না। একজন চোটে পড়ায় আরেকজন খেলছে, তার সামনে যদি আপনি বলেন, ইশ্‌, আজ অমুক থাকলে ভালো হতো, ওই খেলোয়াড় কি জীবনে ভালো খেলবে! এগুলো যখন হয়, তখন দলের পক্ষে ভালো কিছু করা সম্ভব হয় না। এই দল যে বিশ্বকাপে ভালো কিছু করবে না, আমি সেই দিনই বুঝে গেছি।

প্রশ্ন: আপনি কি নির্দিষ্ট কারও কথা বলতে চাচ্ছেন, যে দলের ভেতরের খবর বাইরে বলে দিচ্ছে? নাকি এটা আপনার ধারণা?

সাকিব: দেখুন এটুকু তো বুঝি যে দলে আমাদের দেশের যাঁরা ছিলেন, তাঁদের কাছ থেকেই বের হয়েছে বিষয়টা। বিদেশি কোনো কোচিং স্টাফ সাংবাদিকদের এটা বলেছেন বলে বিশ্বাস হয় না। কারণ আমি যদি অধিনায়ককে এ রকম কথা বলেও থাকি, সেটা তো নিশ্চয়ই বাংলায় বলব।