ফেইল করা মানেই জীবন শেষ নয়

রবিবার, মে ৩১, ২০২০ ৫:১৭ পূর্বাহ্ণ

পাশ ফেইল আছে বলেই এর নাম পরীক্ষা। কিন্তু ফেইল করার মানে এই নয় যে এখানেই জীবনের সবকিছু শেষ হয়ে যায়। বলতে গেলে প্রায় প্রতিবৎসরই এসএসসি রেজাল্ট দেওয়ার পরদিন গণমাধ্যমে আত্মহত্যার খবর পড়তে হয়। দেখা গেলো অকৃতকার্য হওয়ার কারণে তারা জীবনের কোন অর্থ খুঁজে পেলো না। এই প্রবণতা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। এমন অনেকে আছেন যারা কোন রকম প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা পাননি, কিন্তু নিজ কর্মের কারণে স্থান করে নিয়েছেন মানব ইতিহাসে।

ছোটবেলা থেকেই ধারণা, আমাকে ব্যর্থতা এড়াতে হবে। যেহেতু ব্যর্থতা একটি খারাপ এবং অসম্মানজনক ব্যাপার। একটা প্রবাদ আছে- Failure is the pillar of success. ব্যর্থতাই সাফল্যের ভিত্তি। এই কথাটা শোঅফ করা সংস্কৃতির জন্য ততটা কার্যকরী নয়। বরং তা সত্য তাদের জন্য যারা যথার্থ উন্নতি প্রত্যাশা করে। সেখানে ‘ব্যর্থতা’-কে নিন্দার চোখে দেখা হয় না।

ব্যর্থতার কারণ উদ্ঘাটন করার মাধ্যমে ভুল সংশোধনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল কোনো ম্যাচ হেরে গেলে যে গালিবর্ষন তাদের উপর বর্ষিত হয় সকল দেশে কিন্তু ঠিক তেমনটা হয় না। কারণ এই ব্যর্থতা থেকে অন্যদলগুলো শিক্ষা গ্রহণ করে আর আমরা গ্রহণ করি লজ্জা ও ধিক্কার। এমনিভাবে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে পারিবারিক ও সামাজিক একটা হুমকি নিয়ে আমাদের এগোতে হয় এবং তা এড়ানোর জন্য আমরা অসুদপায় অবলম্বনকেও অসঙ্গত মনে করি না।

এখনই সময় এই ধরনের মনোভাব থেকে বের হয়ে আসার। আমাদের ব্যক্তিগত ও রাষ্ট্রীয় সার্বিক কল্যাণের জন্য আমাদের ব্যর্থতাকে ইতিবাচকভাবে গ্রহণের চেষ্টা করতে হবে। তার মানে এই নয় যে ইচ্ছাকৃতভাবে অথবা অনীহা বা অবহেলা আমরা বারবার ব্যর্থ হবো। আমাদের চেষ্টা অবিরত রাখতে হবে। আমাদের সর্বোচ্চ দিয়ে যথার্থ সফলতার দ্বারে পৌঁছাতে নিরলস পরিশ্রম করতে হবে। কিন্তু ব্যর্থ হলে ভেঙে পড়া যাবে না। হতাশ হয়ে রণ-ভঙ্গ দেয়া যাবে না। সেইসাথে কোনো অবস্থায় নিজেকে পরাজিত ভেবে পিছিয়ে আসা যাবে না। আমাদের চ্যালেঞ্জ নিয়ে আরো দৃঢ়ভাবে এগিয়ে যেতে হবে সামনের দিকে। সফলতার দ্বারের কাছে। তবেই আমরা সফল হবো এবং পাব যথার্থ উন্নতি।

এটা ঠিক যে ব্যর্থতা সুখকর নয়। ব্যর্থতা আমাদের কাম্যও নয়। কিন্তু আমরা যখন প্রথম পেন্সিল ধরেছিলাম, অ-আ-ক-খ লেখার চেষ্টা করেছিলাম তখন তো অনেকবারই ব্যর্থ হয়েছিলাম কিন্তু সেখান থেকে পরাজিত মনোভাব নেইনি বরং আরো কঠোর অনুশীলনের ভেতর দিয়ে শেষপর্যন্ত সফল হয়েছি তাহলে জীবনের অন্যক্ষেত্রগুলোতে সেটা সম্ভব নয় কেন? আমরা আসলে ব্যর্থতাকে ভয় পাই। ভয় পাই সামাজিক অস্বীকৃতিকে। এই ভয় থেকে, অস্বীকৃতি থেকে মুক্তির জন্য প্রয়োজন দৃঢ় মনোবল আর অবশ্যই কোনো অবস্থাতেই নিজেকে পরাজিত না ভাবা।

মনে রাখতে হবে ব্যর্থতা থেকে পরাজিত মনোভাব নয় বরং নতুন উদ্যমে এগিয়ে গিয়ে সফল হওয়ার চেষ্টাই হচ্ছে যথার্থ এবং করণীয়। মানব ইতিহাসে এইরকম বহু মানুষ রয়েছে যারা বারবার ফেইল করতে গিয়ে সফলতার সূত্র খুঁজে পেয়েছে।