নানা-নাতনির বিয়ে : মরণ পর্যন্ত নানার সঙ্গে থাকতে চাওয়া মরিয়ম এখন নানার বিচার চান

শনিবার, আগস্ট ২২, ২০২০ ৯:০৩ অপরাহ্ণ

৬৫ বছরের বৃদ্ধকে বিয়ে করা প্রসঙ্গে এক সময় ১৩ বছর বয়সী স্কুলছাত্রী মরিয়ম আক্তার জানিয়েছিল, আমি মরণ পর্যন্ত শামুর সঙ্গে থাকতে চাই।আর এখন মেয়েটি সম্পূর্ণ উল্টো কথা বলছে, সে বলছে, ৬৫ বছর বয়সী রিকশাচালক শামসুল হক শামু তার জীবনটা শেষ করে দিয়েছে এবং তাকে মেরে ফেলার হুমকি ও ভয় দেখিয়ে বিয়ে করে ছিল নানার বয়সি রিকশাচালক শামসুল হক ।

বিখ্যাত ব্লগার জাহাজী পোলা ওরফে হাসান রিয়াজ ভিডিওসহ এক পোস্টে বলেন, ১৩ বছর বয়সী স্কুলছাত্রীর বয়স ১৮ দেখিয়ে তাকে বিয়ে করেছেন ৬৫ বছর বয়সী রিকশাচালক শামসুল হক। ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার লালমাই উপজেলার পেরুলে। শুরুতে মেয়েটি অনেক প্রেম প্রেম কথা বললেও এখন খেয়েছে ১৮০ ডিগ্রী পল্টি! শুনেন কিভাবে পল্টি খেয়েছে মেয়েটা এবং তার প্রতিক্রিয়ায় শামসু দাদু জেল খানা থেকে কি জানালো তাও শুনুন ভিডিওর শেষে!

মনির খান তার ফেসবুক ওয়ালে লিখেন, কুমিল্লা-লাকসামের নানার বয়সী বৃদ্ধ সামছুল (সামু) কে বিয়ে করে হৈচৈ ফেলে দেয়া কিশোরী মরিয়মের তখনকার ভিডিও আর আজকের ভিডিও দেখে মনে হচ্ছে, ইহাকেই প্রকৃত ১৬০ডিগ্রি ইউটার্ন বলে।

প্রসঙ্গত, গত ১০ মে ২০২০ শামছুল হক শামছু ওই ছাত্রীকে ৫ লাখ টাকা দেনমোহর ও ১ লাখ টাকা উসুল দিয়ে রিকশাচালক ও ছয় সন্তানের জনক শামছুল হক শামছু (৬৫) বিয়ে করে ছিলেন মরিয়ম আক্তারকে। অসম বয়সের এ বিয়ের খবর প্রকাশ হতেই সারাদেশে ঘটনাটি ভাইরাল হয়। পরবর্তীতে গ্রেপ্তার হয় শামছু (৬৫)।

শামসুল হকের দুই মেয়ে ও তিন ছেলের মধ্যে এক ছেলে ও এক মেয়ের বিয়ে হয়েছে। আর কনে চার ভাইবোনের মাঝে দ্বিতীয়। তার বড় বোনের এখনো বিয়ে হয়নি। ছোট দুই ভাই রয়েছে। উৎসঃআমাদের সময়