চাচী ডেকে দরজা খু’লিয়ে মা-মেয়ের স’র্বনাশের ভ’য়াবহ স্বী’কারোক্তি

বুধবার, অক্টোবর ৭, ২০২০ ১২:১০ অপরাহ্ণ

মা-মেয়ের স’র্বনাশের ভ’য়াবহ স্বী’কারোক্তি-দায় স্বী’কার করে আ’দালতে জ’বানবন্দি দিয়েছে হবিগঞ্জের চু’নারুঘাটে মা-মে’য়েকে গণধর”ণের ঘট’নার আ’সামি শাকিল মিয়া ও তার বন্ধু হারুন মিয়া। গতকাল সোমবার (৫ অক্টোবর) বেলা ৩টায় হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আদালতের বি’চারক সুলতান উদ্দিন

প্রধান এর আ’দালতে আ’সামিরা দায় স্বী’কার করে এ জ’বানবন্দি দেয়। হবিগঞ্জ কোর্ট পু’লিশের প’রিদর্শক ওসি আল আমিন বি’ষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আ’দালতে স্বী’কারোক্তি দেওয়া আ’সামিরা হলো জেলার চুনারুঘাট উপজেলার জি’বধর ছড়া এলা’কার সফিক মিয়ার ছেলে শাকিল মিয়া (২৫)ও একই এলাকার

রেজ্জাক মিয়ার ছেলে হারুন মিয়া (১৯)। এর মধ্যে অন্যতম আ’সামি সা’লাউদ্দিন প’লাতক রয়েছে। শা’কিলের বরাত দিয়ে কোর্ট ইন্সপেক্টর ও মা’মলার ত’দন্তকারী ক’র্মকর্তা ই’ন্সপেক্টর ত’দন্ত জানান, পূর্ব প’রিকল্পিতভাবে নিভৃত পাহাড়ি এলাকায় গত শুক্রবার গভীর রাতে গরমছড়ি ফরেস্ট এলাকায় মাজারে ঘুরতে যায় শাকিল

হারুন ও সালাউদ্দিনসহ তার দলবল। সেখানে তারা হাত মুখ ধুয়ে মা’জারের অদূরে পা’হাড় বেষ্টিত পূ’র্বদিকের টিলায় জ’নৈক ব্য’ক্তির বাড়িতে গিয়ে গৃহবধূকে চাচী বলে দ’রজা খু’লতে বলে। পূর্ব পরিচিত ওই গৃহবধূ শাকিলকে চা-পান দেন। এ সুযোগে শাকিলের নেতৃত্বে একদল যু’বক হা’না দিয়ে গৃ’হবধূ (৪৫) ও তার ক’ন্যাকে

(২৫) হাতে মুখে কা’পড় বেঁ’ধে গণধর”ণ করে পা’লিয়ে যা’য়। এ ঘ’টনার পর ভি’কটিম মে’য়ে বা’দী হয়ে শনিবার রাতে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে অ’জ্ঞাত কয়ে’কজনকে আ’সামি করে একটি মা’মলা দা’য়ের করেন। মা’মলার প্রে’ক্ষিতে রবিবার বি’কেলে চুনারুঘাট থা’নার ইন্স’পেক্টর তদন্ত চম্পক দাম এর নেতৃত্বে

এসআই শেখ আলী আ’জহার ও এসআই মুসলিম উদ্দিনসহ একদল পু’লিশ মৌল’ভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল অ’ভিযান চালি’য়ে দু’জনকে আ’টক ক’রেন। হবিগঞ্জ কোর্ট পু’লিশের পরি’দর্শক ওসি আল আমিন জানান, আ’টককৃ’তদের আদা’লতে স্বী’কারোক্তি শে’ষে তাদে’রকে কা’রাগারে পা’ঠানো হ’য়েছে।bd24live