ওসি প্রদীপ কু’মারসহ যে ৩ আ’সামির ৭ দিন করে রি’মান্ড মঞ্জুর

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৬, ২০২০ ৪:৫১ অপরাহ্ণ

৭ দিন করে রি’মান্ড মঞ্জুর-অবসরপ্রাপ্ত মেজর রাশেদ সিনহা হ’ত্যা মা’মলায় ওসি প্রদীপসহ তিন আ’সামির ৭ দিন করে রি’মান্ড ম’ঞ্জুর করেছে আ’দালত। আ’ত্মসর্ম্পন করা বাকি চার আ’সামিকে জে’লগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার নি’র্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি বাকি পা’লাতক দুই আ’সামির বি’রুদ্ধে গ্রে’ফতারি প’রোয়ানা জা’রি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) কক্সবাজারের জু’ডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালত এ আ’দেশ দেন। এর আগে, র‌্যা’ব সব আ’সামির বি’রুদ্ধে ১০ দিনের রি’মান্ডের জন্য আবেদন করে। বৃহস্পতিবার বিকেলে, আ’ত্মসম’র্পণ করা আ’সামিদের জা’মিন আবেদন না’মঞ্জুর করে কা’রাগারে প্রে’রণের নির্দেশ দেয় জুডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালত।

বিকেলে কক্সবাজারের জু’ডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালতে আত্ম’সমর্পণ করেন আ’সামিরা। এ সময় জামিন আবেদন করা হলে, বি’চারক তা না’মঞ্জুর করে কা’রাগারে পা’ঠানোর নি’র্দেশ দেন। এ মা’মলায় ৯ আ’সামির মধ্যে দুইজন আ’দালতে আ’ত্মসমর্পণ করেননি। এদিকে, গ্রে’প্তারের পর চট্টগ্রাম থেকে পু’লিশ হে’ফাজতে কক্সবাজারে নে’য়া হয় টেকনাফ থা’নার প্র’ত্যাহারকৃত ওসি প্রদীপকে।

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) বিকেল পাঁচটার দিকে কক্সবাজার পৌঁছে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আ’দালতে আ’ত্মসমর্পণ করেন প্রদীপ কুমার দাশ। বুধবার (৫ আগস্ট) সকালে টেকনাফ থা’নার ওসি প্রদীপ ও বাহারছড়া চেকপোস্টের আইসি লিয়াকতসহ ৯ পু’লিশ সদ’স্যকে আ’সামি করে কক্সবাজার জু’ডিশিয়াল ম্যাজি’স্ট্রেট আ’দালতে হ’ত্যা মা’মলা করেন নি’হতের বোন।

এই মা’মলায় বা’হারছড়া চেকপোস্টের ইনচার্জ এস আই লিয়াকত হোসনকে ১ নম্বর ও প্র’ত্যাহারকৃত টে’কনাফ থা’নার ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে ২ নম্বর আসামি করে আরো ৭ পু’লিশ স’দস্যকে আসামি করা হয়। অন্য আ’সামিরা হলেন: উপপরিদর্শক (এস আই) নন্দলাল রক্ষিত, কন’স্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন,

এ এস আই লিটন মিয়া, এস আই টুটুল, কনস্টেবল মো. মোস্তফা। আ’দালতের নি’র্দেশে গতরাতে টেকনাফ থা’নায় ন’থিভুক্ত করা হয় মা’মলাটি। এর পরপরই এজাহারভুক্ত ৯ আ’সামির বি’রুদ্ধে গ্রে’প্তারি পরো’য়ানা জা’রি হয়। মা’মলাটি তদন্তের দা’য়িত্ব দেয়া হয়েছে র‌্যাবকে। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার কক্সবাজারের টেকনাফে পু’লিশের গু’লিতে নি’হত হন অ’বসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদ।

একে স’রাসরি হ’ত্যাকা’ণ্ড বলে দা’বি করছেন সি’নহার স্বজনরা। সে’নাবাহিনী থেকে স্বে’চ্ছায় অবসর নেয়ার পর বিশ্ব ভ্রমণের পরিকল্পনা করছিলেন মেজর সিনহা রাশেদ। ভ্রমণ বিষয়ক একটি ইউটিউব চ্যানেল বানানোর কাজও চলছিলো তার। এরই অংশ হিসেবে সিনহা কক্সবাজারে ভি’ডিও তৈরির কাজে গিয়েছিলেন বলে জানায় তার পরিবার। পরে পু’লিশ দাবি করে, আ’ত্মরক্ষা’র্থেই গু’লি করা হয় রা’শেদকে।bd24live