অবশেষে মাশরাফিকে বিদায় দেওয়ার সময় চুড়ান্ত করেছে বিসিবি

শনিবার, আগস্ট ৩, ২০১৯ ১২:৩৬ অপরাহ্ণ

২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপজুড়েই বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্সের পাশাপাশি একটি বিষয়ে আলোচনা হয়েছে অনেক বেশি। সেটি দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার অবসর। অনেকেই ধরে রেখেছিলেন এবারের বিশ্বকাপেই হয়তো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে দেবেন টাইগার অধিনায়ক।

কিন্তু বিশ্বকাপের মাঝপথে সংবাদ সম্মেলন করে মাশরাফি জানিয়ে দিয়েছিলেন, এবারের বিশ্বকাপই তার শেষ টুর্নামেন্ট নয়। বরং বিশ্বকাপ শেষ করে দেশে ফিরে তবেই জানাবেন ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা। বিশ্বকাপে তার ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স খুবই বাজে হওয়ায় অবসরের আলোচনাটা হয়েছে একটু বেশিই।

এদিকে সর্বশেষ পাওয়া সংবাদ অনুযায় জানা গেছে, আগামী সেপ্টেম্বরে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ আয়োজন করার কথা বিসিবির। টি-টোয়েন্টির সাথে কিছু ওয়ানডেও যোগ করে মাশরাফি মুর্তজাকে বিদায় দেওয়ার চিন্তা ভাবনা করছে বিসিবি। তবে ওয়ানডে সিরিজ আয়োজনে এখনো জিম্বাবুয়ের সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে রয়েছে বিসিবি।

বিডিক্রিকটাইমের একটি প্রতিবেদনে জানা যায়, ২০০১ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন বাংলাদেশ দলের বর্তমান ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি। আর সেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই তাকে বিদায় দেওয়ার চিন্তা করছে বিসিবি। মাশরাফির অবসরের গুঞ্জন নতুন কিছু নয়। অনেক আগ থেকে চলছে এটি। বেশি জোরালো হয়েছে বিশ্বকাপে বল হাতে তার নিস্প্রভ পারফরম্যান্সের পর। সমর্থকদের একাংশ চাইছে ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ক্রিকেটকে বিদায় জানাক মাশরাফি।

এফটিপি অনুযায়ী আগামী বছর আয়ারল্যান্ড ছাড়া কোন ওয়ানডে সিরিজ নেই বাংলাদেশের। সেইসাথে বিসিবি চাইছে যেন তার বিদায়টা ঘরের মাঠেই দিক। সেজন্য জিম্বাবুয়েকে ওয়ানডে খেলার প্রস্তাবও দিয়েছে বিসিবি। কিন্তু কয়েকদিন আগে তাদের বোর্ডে সরকারের হস্তক্ষেপ না থাকায় নিষিদ্ধ করা হয়েছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটকে। যার জন্য বিসিবির প্রস্তাবে এখনো সাড়া দেয়নি জিম্বাবুয়ে। তাদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দীন।

নিজাম উদ্দীন জানান, ‘মাশরাফির বিদায়ি ম্যাচ আয়োজন নিয়ে আমরা কাজ করব। তবে এর আগে আমরা জিম্বাবুয়ের অংশগ্রহণ নিশ্চিত হওয়ার অপেক্ষায় আছি। সেটি নিশ্চিত হলেই আমরা মাশরাফির বিষয়টি নিয়ে কাজ শুরু করতে পারব।’

আইসিসি জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটকে নিষিদ্ধ করলেও যেকোন ক্রিকেট বোর্ড চাইলে তাদের বিপক্ষে ম্যাচ খেলতে পারবে। ওয়ানডে সিরিজ খেলার ইচ্ছে থাকলেও তাদের মূল সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে অর্থ। আর সেই জন্যই সময় নিচ্ছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট।

এ ব্যাপারে নিজাম উদ্দীন জানান, ‘গত বুধবার জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হয়েছে। ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে অংশ নেওয়ার বিষয়ে চূড়ান্ত মত জানানোর জন্য তারা আরো কিছুদিন সময় নিয়েছে।’